Header Ads

বোবায় ধরা থেকে রক্ষা পেতে যা করবেন

সেবা পোস্ট ই-সেন্টারের আদর্শ

ছবি : প্রতীকী
আপনার ঘুমিয়ে থাকার সময় কি বুকে চাপ লাগা বা শ্বাসপ্রশ্বাস বন্ধ হয়ে আসতে চায়? ঘুমন্ত অবস্থায় প্রায়ই কি শত্রুর উপস্থিতি অনুভূত হয়? আপনি কি ঘুম থেকে আতঙ্কে জেগে ওঠেন?
যদি আপনার সঙ্গে এমনটি হয়ে থাকে তাহলে কেন এটা হয় এর উত্তর জেনে নিন এই প্রতিবেদন থেকে। এর নাম স্লিপ প্যারালাইসিস বা বাংলায় যাকে বলা হয় বোবায় ধরা। তথ্যসূত্র লাইভ সায়েন্স।
বোবায় ধরা কী?
আমাদের মন দু’ধরনের অবস্থায় বিরাজ করে- চেতন ও অবচেতন। আর অবচেতন মনের বিরূপ একটি ঘটনা স্লিপ প্যারালাইসিস বা বোবায় ধরা। শরীরের পেশী সম্পূর্ণ দুর্বল হয়ে গেলে মানুষ ঘুমের মধ্যে অসাড় হয়ে পড়ে, হার্টবিট কমে যায়, বুকে চাপ অনুভূত হয়। জাগ্রত অবস্থায়ও এ ধরনের পরিস্থিতি সৃষ্টি হতে পারে।
তবে, যতই বোবায় ধরুক না কেন কিছু নিয়ম মেনে চললে এই বিদঘুটে অবস্থা থেকে রেহাই পেতে পারেন। যা কিছু করণীয়-
সঠিক সময় খাবার গ্রহণ:
ঘুমাতে যাওয়ার অন্তত ২ ঘণ্টা পূর্বে খাবার গ্রহণ করতে হবে আপনাকে। এ নিয়ম ব্যাহত হলে শারীর বৃত্তীয় সমস্যা হতে পারে যার বিরূপ প্রভাব পড়বে মনের ওপর। এর ফলে স্লিপ প্যারালাইসিস বা বোবায় ধরা-এ আক্রান্ত হতে পারেন আপনি।
ঘুমের অনিয়ম পরিহার:
ঘুমের অনিয়ম হলে কিংবা নিয়মিত ঘুমানোর অভ্যাস না থাকলে স্লিপ প্যারালাইসিস-র সম্ভাবনা বৃদ্ধি পায়। তাই, অনিদ্রা পরিহার করতে হবে। চিত কিংবা উপুড় হয়ে না শুয়ে কাত হয়ে শোওয়া উত্তম।
স্লিপিং পিল পরিহার:
স্লিপিং পিল বা ঘুমের ওষুধ বোবায় ধরা’র অন্যতম কারণ। তাই স্লিপিং পিল পরিহার করতে হবে।
মানসিক চাপ বর্জন:
মানসিক চাপজনিত কারণে এই সমস্যা হতে পারে। তাই, অবশ্যই দুশ্চিন্তা পরিহার করতে হবে। এর ফলে, শুধু স্লিপ প্যারালাইসিস নয় আরো অনেক জটিল সমস্যা থেকে রেহাই পাবেন আপনি।
আর ঘন-ঘন বোবায় ধরা’য় আক্রান্ত হলে আপনি ডাক্তারের পরামর্শ নিতে কোনোই ভুলবেন না। যত দ্রুত সম্ভব ডাক্তারের পরামর্শ নিবেন।

No comments

Powered by Blogger.