Header Ads

পেঁপের বীজের উপকারিতা

সেবা পোস্ট ই-সেন্টারের আদর্শ
পেঁপের বীজের উপকারিতা
জনপ্রিয় একটি ফলের নাম পেঁপে। কাঁচা এবং পাকা দুইভাবেই খাওয়া যায় পেঁপে। ভাটামিন ও মিনারেল সমৃদ্ধ পেঁপের বীজেও রয়েছে ভরপুর পুষ্টিগুণ। পেঁপে খাওয়ার পরে আমরা সাধারণত এর বীজ ফেলে দেই। পেঁপের বীজ ফেলে না দিয়ে খেলে মিলবে অনেক উপকার। চলুন জেনে নেই-
পেঁপের বীজে রয়েছে প্রোটিওলাইটিক উৎসেচক, যা দেহে বাসা বাধা নানা ক্ষতিকর জীবাণু নাশ করে। দেহে প্রোটিন বিপাকে সাহায্য করে, পাশাপাশি, ব্যাকটেরিয়ার আক্রমণ থেকে রক্ষা করে।
শরীরের ভেতর প্রোটিন ফাইবারকে ভাঙতে এবং হজম প্রক্রিয়াকে অনেক দ্রুত করে পেঁপে বীজ।
ত্বকের যত্ন থেকে ক্যান্সার প্রতিরোধ, সবেতেই পেঁপের উল্লেখযোগ্য ভূমিকা রয়েছে। বিশেষজ্ঞেরা জানাচ্ছেন, পানি ও দইয়ের সঙ্গে পেঁপে বীজের মিশ্রণ তৈরি করে নিয়মিত পান করলে যকৃত ভালো থাকে।
ডেঙ্গু প্রতিরোধে পেঁপের উল্লেখযোগ্য ভূমিকা রয়েছে। ডেঙ্গু জ্বরে আক্রান্ত হলেই প্লেটলেট কমতে শুরু করে। এই সময় নিয়মিত পেঁপে বীজ এবং পেঁপে পাতা খেলে প্লেটলেট আবার স্বাভাবিক মাত্রায় ফিরে আসে।
শুষ্ক চুল এবং খুসকির সমস্যায় ভোগেন অনেকে। বিশেষজ্ঞদের মতে, নিয়মিত পেঁপে বীজ খেলে চুল ঘন হয় এবং খুসকি দূর হয়।
তেলতেলে ত্বক এবং ব্রণের সমস্যা দূর করতে পেঁপে বীজ দিয়ে বানিয়ে ফেলুন ঘরোয়া মিশ্রণ। পেঁপে বীজ এবং পাতা বেটে ফেস প্যাক বানিয়ে মুখে লাগিয়ে রাখুন ১০ মিনিট। ত্বকের হারানো ঔজ্জ্বল্য ফিরে আসবে।
পিরিয়ডের ব্যথা সম্পূর্ণ উপশমের কোনো উপায় নেই। তবে কিছু জিনিস মেনে চললে ব্যথা অনেক বশে থাকবে। পিরিয়ড চলাকালীন পেঁপে বীজের সঙ্গে মধু মিশিয়ে খান। ব্যথা অনেক কম হবে।

No comments

Powered by Blogger.