Header Ads

এবার রামোসের বিরুদ্ধে ১২০ কোটি ডলারের মামলা!

সেবা পোস্ট ই-সেন্টারের আদর্শ

ছবি: সংগৃহীত
লিভারপুল ও মিসরের স্ট্রাইকার মোহাম্মদ সালাহকে নিয়ে উদ্বেগ তৈরি হলেও এখনই আশা ছাড়ছেন না তিনি। বরং নিজের আশার কথা ঘোষণা করেছেন আত্মবিশ্বাসের সাথেই। রেয়াল মাদ্রিদের বিরুদ্ধে চ্যাম্পিয়নস লীগের ফাইনালে কাঁধের ইনজুরি নিয়ে মাঠ ছাড়তে হয়েছে তাকে।
মাঠ ছেড়ে যাওয়ার সময় তার কান্নার দৃশ্য ফুটবল ভক্তদের অনেকেরই হৃদয় ছুঁয়েছে। বিশ্বকাপের অল্প ক'দিন আগে মূল তারকার এমন আঘাতে ক্ষুব্ধ হয়ে উঠেছেন মিসরের সমর্থকরাও।
ওদিকে মিসরে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে সালাহর ঘটনা নিয়ে তীব্র সমালোচনা হচ্ছে রেয়ালের খেলোয়াড় সার্জিও র‍্যামোসের বিরুদ্ধে।
সালাহর চোট মিসরীয়দের কাছে শোকের বার্তার বয়ে এনেছে। তারা কিছুতেই মানতে পারছেন না বিশ্বকাপের আগে সেরা তারকার চোটের খবর। তার চোটে দেশটির সাধারণ ভক্ত থেকে শুরু করেই প্রেসিডেন্ট পর্যন্ত কথা বলেছেন। সালাহ অবশ্য বিশ্বকাপে খেলতে পারবেন বলে আশা প্রকাশ করেছেন। কিন্তু তার চোটের খবরে মিসরীয়রা যে মানসসিকভাবে ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছেন তার কি হবে!
মিসর প্রেসিডেন্ট আবদেল ফাত্তাহ আল-সিসি প্রত্যাশা করছেন রাশিয়ায় সময়মতো ফিট সালাহকে পাওয়া যাবে। তবে তা এখনো প্রত্যাশার মধ্যেই সীমাবদ্ধ আছে। সালাহকে অনৈতিকভাবে ট্যাকল করেছেন রামোস। এমন দাবি করে তার শাস্তি চেয়ে একটি অনলাইন পিটিশন দায়েরের চেষ্টা চলছে। প্রথমে দেড় লাখ ভক্তের স্বাক্ষর সংগ্রহ করার উদ্দেশ্য ছিল তাদের। কিন্তু এরইমধ্যে পিটিশনে চার লাখের কাছাকাছি মানুষ স্বাক্ষর করেছে। ওই পিটিশনটি ফিফা এবং উয়েফার কাছে দেওয়া হবে।
তবে ওসব ছাড়িয়ে গেছে রামোসের নামে মামলার ঘটনা। সালাহকে বিশ্বকাপে অনিশ্চয়তায় ফেলে দেওয়ার জন্য ক্ষোভ ঝাড়ছেন মিসরবাসী। তাদের মানসিক অবস্থা সহজেই অনুমেয়। দারুণ শঙ্কার মধ্যে আছেন তারা। আর মিসরীয় এক আইনজীবী ওয়াহাব দেশের মানুষকে এভাবে মানসিক কষ্টের মধ্যে ফেলে দেওয়ার কারণে মামলা ঠুকে দিয়েছেন রামোসের নামে।
দেশটির ওই আইনজীবী ফিফার কাছে ১ দশমিক ২ বিলিয়ন মার্কিন ডলারের আর্থিক শাস্তির দাবি জানিয়ে আনুষ্ঠানিক অভিযোগই দায়ের করেছেন। তার আবেদনে রামোসের বিরুদ্ধে মিসরের তারকা সালাহকে এবং মিসরের মানুষকে 'ইচ্ছাকৃতভাবে শারীরিক ও মানসিক ক্ষতি' সাধনের অভিযোগ আনা হয়েছে। আর তাই দাবি করা হয়েছে রামোসের শাস্তির।
অনেকে মিসরীয় জনগণের এবং দেশটির আইনজীবীর করা মামলাকে নিছক পাগলামী ভাবতে পারেন। কিন্তু সালাহ মিসরের ফুটবল রাজার খ্যাতি পেয়েছেন। দেশটির অধিনায়ক তিনি। বিশ্ব ফুটবলের অন্যতম সেরা তারকা এই মিসরের বিস্ময়। এছাড়া ১৯৩৪ এবং ১৯৯০ সালের পর তৃতীয়বারের মতো বিশ্বকাপ খেলতে যাচ্ছে দেশটি। সালাহ থাকার কারণে বেশ সমীহও আদায় করে নিয়েছিল তারা। তাই সালাহর চোট এবং বিশ্বকাপে খেলতে না পারার ভয় মিসরীয়দের কষ্ট না দিয়ে পারে না।
উল্লেখ্য, চ্যাম্পিয়ন্স লিগের ফাইনালে রেয়াল মাদ্রিদের অধিনায়ক সের্জিও রামোস খেলার ২৬ মিনিটের মাথায় সালাহকে টেনে মাটিতে ফেলে দিলে তিনি কাঁধে চোট পেয়েছেন। প্রথমে মাঠেই তাকে চিকিৎসা দেওয়া হয়। তিনি খেলা চালিয়ে যাওয়ার চেষ্টা করেছিলেন। কিন্তু আর পারেননি। পরে তিনি ব্যথায় কাতরাতে কাতরাতে মাঠের বাইরে চলে যেতে বাধ্য হন। এসময় তিনি কাঁদছিলেন।

No comments

Powered by Blogger.